আলফন্সো

User Rating:  / 0
PoorBest 

 আলফন্সো নামটি জনৈক আলফোনসো ডি-আলবুকুয়ের এর নাম থেকে এসেছে। আমটির আদি জন্মস্থান গোয়া। সে সময় পর্তুজিদের একটি উপনিবেশ ছিল গোয়া। আলফনসোনামিয় ব্যক্তিটি ছিলেন গোয়া।

 আলফন্সো নামটি জনৈক আলফোনসো ডি-আলবুকুয়ের এর নাম থেকে এসেছে। আমটির আদি জন্মস্থান গোয়া। সে সময় পর্তুজিদের একটি উপনিবেশ ছিল গোয়া। আলফনসোনামিয় ব্যক্তিটি ছিলেন গোয়া।

আলফন্সোনামীয় ব্যক্তিটি ছিলেন গোয়া নিবাসী একজন পতুগিজ। স্থানীয় গোয়ানিজরা তাদের কানাডা ভাষায় আলফনসো উচ্চারণ করতে গিয়ে এটিকে বানিয়েছে আপুস এবং আরও উত্তরে গিয়ে মারাঠিরা নিজেদের উচ্চরণের সুবিধার্থে বলতে থাকেন হাপুস। ভাতের যত জাতের উৎকৃষ্ট আম রয়েছে, সেগুলোর মধ্যে আলফনসো অন্যতম শ্রেষ্ট। ভারত থেকে বিদেশে রপ্তারিকৃত আম প্রায় সম্পূর্ণটাই এই জাতের। ফলটির আকার মাঝারি। ওজন ১৫০-৩০০ গ্রাম। অনেকটা ডিম্বাকার তেরছা ধরন, নাক অস্পষ্ট। খোসা মাঝারি, ত্বক মসৃণ, পাকলে হলুদ এবং হালকা সবুজ মেশানো। শাঁস রসাল, রং হলুদ কমলায় মেশানো। আমটি সুগন্ধযুক্ত, অত্যন্ত মিষ্টি এবং ভাল স্বাদের। আঁটি খুব সামান্য আঁশ রয়েছে। আঁটি পাতলা এবং সামান্য লম্বা। এর সংরক্ষন  গুন বেশ ভাল। আসল এবং খাঁটি আরফনসো গোয়া এলাকাতে ভাল জন্মে। বোম্বা এলাকায় আলফনসো গোয়ার আলফনসোর তুলনায় অনেকটা নিম্নমানের। গোয়ায় উৎপাদিত আলফনসো বাম কাঁধ ডার কাঁধ অপেক্ষা সামান্য উঁচু হবে এবং ঠোঁট দৃষ্টিগোচর। অপর দিকে বোম্বে এলাকার আলফনসো আমে কোনো ঠোঁট পাওয়া যাবে না। আলফনসোর মোট তিনটি প্রজাতি রয়েছে। এগুলো হচ্ছে গোল, কালা ও কাগরী আপুর। ভারতে আষাঢ় মাসে অর্থাৎ জুলাই মাসে আম পাকে। গাছের আকার বড়। ভারতের গোয়া এলাকা ব্যতীত মহারাষ্ট্র রাজ্যের মধ্যে রত্নাগিরি সিন্ধুদুর্গ, দেবগড়, তালুকা এসকল অঞ্চলে উন্নতমানের আলফনসো জন্মে থাকে বোম্বেন দক্ষিণে পুনে এলাকাতেও এই জাতটির চাষ হয়ে থাকে। দক্ষিণ গুজরাটের বলসাদ এবং নবসরি এলাকাতেও প্রচুর পরিমানে এই ফলটি উৎপাদিত হয়। মহারাষ্ট্রের কোঁকান অঞ্চলের দেবগড় এলাকার আলফনসো বর্তমানে সর্বোকৃষ্ট বলে স্বীকৃত। এই এলাকার উৎপাদিত জাতটি বাজারে সবচেয়ে বেশি দাম পেয়ে থাকে। সমগ্র দক্ষিণ এশিয়াতে আলফনসো হাপুস নামে পরিচিত। দীর্ঘ ১৮ বছর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ভারতীয় আম রপ্তানি নিষিদ্ধ ছিল।২০০৭ সাল সরকারী ভাবে নিষিদ্ধাদেশ তুলে নিল পুনরায় আলফনসো মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে প্রবেশ করেছে। ফলটি সেদেশে অত্যন্ত জনপ্রিয়। বাংলাদেশের কোথাও ফলটি চাষ হচ্ছে বলে শোনা যায়নি। মনাকশার (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) চৌধুরী বাগানে দুটিআলফনসো আমের গাছ রয়েছে।একই আমের বিভিন্ন নাম যেমন:  আলফ্যান্সো, আলফনসি, কাদের, কাদের পছন্দ, গুন্ডু, বাদামী, পাটনামজাথী, আপুস, কাগরী, হাপুস (নায়ক ও গাঙ্গলী, ১৯৯০)। মারাঠী ভাষায় আমটির নাম হাপুস এবং কানাডা ভাষায় আমটি আপুস নামে পরিচিত।

 

আরও কিছু ছবিঃ

Leave your comments

0
terms and condition.
  • No comments found