x 
Empty Product
Monday, 19 August 2013 15:02

পচন রোধে আম শোধন

Written by 
Rate this item
(0 votes)

আম সংগ্রহের সময় তাপমাত্রা ও আর্দ্রতা বেশি থাকায় আম দ্রুত পচে যায়। সেজন্য বাজার থেকে আম কেনার পর দুই থেকে চার দিনের মধ্যেই আম পচে যায়। আমাদের দেশে উৎপাদিত আম সংগ্রহের পর নষ্ট হওয়ার হার প্রায় ২৭ শতাংশ। প্রধানত বোঁটা পচা রোগ ও অ্যানত্রাকনোসের কারণে এই বিপুল পরিমাণ আম নষ্ট হয়। তাছাড়া অপরিপক্ব আম গাছ থেকে সংগ্রহ করা, পরিবহনের জন্য ত্রুটিপূর্ণ আধার ব্যবহার করা, গাছ থেকে সংগ্রহের পর বিভিন্ন প্রক্রিয়া ঠিকমতো না করা প্রভৃতি কারণেও আম নষ্ট হয়।
 দেখা গেছে ৫২ থেকে ৫৫ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড তাপমাত্রার গরম পানিতে পাঁচ থেকে সাত মিনিট ধরে আম শোধন করলে বোঁটা পচা রোগ ও অ্যানথ্রাকনোস দমন হয়। গবেষণাগারের পরীক্ষার এই ফল বাণিজ্যিকভাবে কাজে লাগানোর জন্য বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট, গাজীপুরের কৃষি যন্ত্রপাতি ও শস্য সংগ্রহোত্তর প্রক্রিয়াজাতকরণ প্রকৌশল বিভাগের বিজ্ঞানীরা ২০০৬ সালে গরম পানিতে আম শোধন যন্ত্র উদ্ভাবন করেছেন।
 যন্ত্রটিতে লোহার শিট দিয়ে ১০ ফুট লম্বা, ৩ দশমিক ৩৩ ফুট চওড়া এবং ১ দশমিক ৮৭ ফুট উচ্চতার একটি পানির ট্যাংক তৈরি করা হয়েছে। তার বাইরে এক ইঞ্চি পুরু কর্ক শিট আটকানো হয়েছে পানির তাপ নিরোধ করার জন্য। পানির ট্যাংকের ভেতরের দিকের গায়ে তিন কিলোওয়াট ক্ষমতার ছয়টি বৈদ্যুতিক হিটার লাগানো হয়েছে। এগুলো একটি তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণকারী প্যানেলের সঙ্গে এমনভাবে যুক্ত করা হয়েছে, যাতে পানির তাপমাত্রা নির্দিষ্ট পর্যায়ে রাখা যায়। ট্যাংকের তলায় লোহার পাইপ নির্মিত রোলার প্রস্থ বরাবর লাগানো আছে। মোটরের ক্ষমতা ০ দশমিক ৭৫ কিলোওয়াট। এটি দিয়ে রোলার পাইপ ও নাড়ুনি ঘোরানো হয়। যন্ত্রটি চালানোর জন্য ২০ কিলোওয়াট শক্তি প্রয়োজন।
 আম শোধনের জন্য পানির ট্যাংকে প্রথমে স্বাভাবিক তাপমাত্রার পরিষ্কার পানি ভরে হিটার ৫৫ ডিগ্রি তাপমাত্রায় সেট করা হয়। দুই থেকে তিন ঘণ্টা পর পানির তাপমাত্রা ৫৫ ডিগ্রিতে ওঠে। তখন রোলার চালানোর জন্য মোটর চালু করা হয়। আমভর্তি প্লাস্টিকের ঝুড়ি প্লান্টের এক প্রান্তে পানির মধ্য দিয়ে রোলারের ওপর বসিয়ে দেওয়া হয়। ঝুড়িটি সঙ্গে সঙ্গে যন্ত্রের অন্য প্রান্তের দিকে চলা শুরু করে। পুনরায় আম ভর্তিঝুড়ি রোলারের ওপর বসানো হয়। এভাবে অনবরত আমভর্তি ঝুড়ি বসানো হয়। বসানোর ঠিক পাঁচ মিনিট পর ঝুড়ি অন্য প্রান্তে পৌঁছে যায়। আমভর্তি ঝুড়ি তখন অন্য প্রান্ত থেকে তুলে আম শুকানোর জন্য রাখা প্লাস্টিক শিটের ওপর ছড়িয়ে দেওয়া হয়। বৈদ্যুতিক পাখা দিয়ে সদ্য শোধনকৃত আম শুকিয়ে প্যাকিং করা হয়। আম শুকানোর জন্য দুই থেকে তিন মিনিট সময় লাগে। যন্ত্রটির মূল্য প্রায় ৭৫ হাজার টাকা। এটি আম ব্যবসায়ীদের জন্য উপযোগী।
 হিসাব করে দেখা গেছে, প্রতি কেজি আম শোধনে খরচ পড়ে মাত্র ০ দশমিক ১৭ টাকা। এ যন্ত্র ব্যবহার করলে আমের অপচয় রোধ হবে।
 বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের প্রতিবেদন অবলম্বনে

Read 3340 times Last modified on Tuesday, 03 September 2013 04:33

Leave a comment

Make sure you enter the (*) required information where indicated. HTML code is not allowed.