x 
Empty Product
Monday, 30 September 2013 07:57

শিবগঞ্জের কুরিয়ার সার্ভিসগুলো আম পাঠানোর নামে গলাকাটা অর্থ আদায় করছে বলে অভিযোগ উঠেছে

Written by 
Rate this item
(0 votes)

 border="0" alt="" />  শিবগঞ্জের কুরিয়ার সার্ভিসগুলো আম পাঠানোর নামে গলাকাটা অর্থ আদায় করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। শুধু তাই নয়, আম বুকিংয়ের সময় যে টাকা প্রেরকের কাছ থেকে নেয়া হয় মেমোতে তা লেখা হয় না। আম প্রেরণকারীদের অভিযোগ, দেশের বিভিন্ন স্থানে আম পাঠানোর জন্য কেজি প্রতি ১০ টাকা করে নেয়ার নির্দেশ থাকলেও শিবগঞ্জের কুরিয়ার সার্ভিসগুলো ১২ থেকে ১৩ টাকা করে আদায় করছে। অথচ বুকিং মেমোতে লেখা হচ্ছে প্রতি কেজি সাড়ে ৮ টাকা করে। এ ব্যাপারে আম প্রেরণকারী আবদুল মজিদ জানান, ২৩ জুন করতোয়া কুরিয়ার সার্ভিস শিবগঞ্জ শাখা থেকে আম বুকিং করার সময় তাদের হিসাব মোতাবেক ১ হাজার ৩৫০ টাকা নিলেও বুকিং রসিদে লেখা হয় ৯৯০ টাকা। বুকিং নং কেসিপিএস ৭৩৫১৩। এছাড়া ১৭ জুন কেসিপিএস ৪৮৭২৭ নং বুRajshahi Mangoকিং মেমোতে ৪৬০ টাকা নিলেও মেমোতে লেখা হয় ৩৪০ টাকা। ২৪ জুন একই কুরিয়ার সার্ভিস থেকে কেসিপিএস ৩৫৭২ নং বুকিং মেমোতে ২৪০ টাকা নেয়া হলেও লেখা হয় ১৭০ টাকা। অহরহ এ ধরনের অভিযোগ রয়েছে। এ ব্যাপারে করতোয়া কুরিয়ার সার্ভিসের বগুড়া হেড অফিসের ০১৭১৩২২৮৪০১ নং মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, কুরিয়ার সার্ভিসের বিধান মোতাবেক আম প্রেরণকারীর কাছ থেকে যে টাকা নেয়া হয় প্যাকিং চার্জ ২০ টাকা ছাড়া পুরো টাকা মেমোতে উল্লেখ করতে হবে। কিন্তু কেন করা হয় না, তা জেনে জানানো হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন। পরে বগুড়া হেড অফিসে যোগযোগ করা হলে তিনি জানান, বিষয়টি সরাসরি কুরিয়ার সার্ভিসের মালিককে জানানো হয়েছে। এ ব্যাপারে বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানানো হয়। শুধু করতোয়ায় নয়, শিবগঞ্জের সুন্দরবন, জননী, আহমেদ পার্সেল, এসআর এসব কুরিয়ার সার্ভিসগুলোতে অতিরিক্ত টাকা নেয়া হচ্ছে। করতোয়া সার্ভিস বুকিংকারীদের কাছ থেকে ঝুড়ি-কার্টন প্রতি ৩০-৪০ টাকা করে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করে থাকে। যার কোনো মেমো দেয়া হয় না। অন্যান্য কুরিয়ার সার্ভিসগুলো ১০ টাকা কেজি প্রতি বুকিং করলেও করতোয়া কুরিয়ার সার্ভিসের স্থানীয় ব্যক্তিরা ইচ্ছা মাফিক টাকা আদায় করে থাকেন। এ ব্যাপারে করতোয়া কুরিয়ার সার্ভিসের শিবগঞ্জ শাখার এক কর্মচারীর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ঝুড়ি প্রতি পরিবহন ভাড়া ৩০-৪০ টাকা ও প্যাকিং চার্জ ৩০ টাকা করে দিতে হবে। যার কোনো লিখিত মেমো দেয়া যাবে না। এসব গলাকাটা পয়সা আদায়ের ব্যাপারে আম বুকিংকারীরা স্থানীয় প্রশাসনের কাছে এর প্রতিকার দাবি করেছেন। উল্লেখ্য, শিবগঞ্জ উপজেলা থেকে প্রতিদিন শত শত কার্টন আম বুকিং হয়ে থাকে।

Read 829 times Last modified on Sunday, 01 December 2013 09:46

Leave a comment

Make sure you enter the (*) required information where indicated. HTML code is not allowed.