x 
Empty Product
Tuesday, 17 December 2019 08:39

ভারতে একটি নুরজাহান আমের দাম ৫০০ রুপি

Written by 
Rate this item
(0 votes)

ফলের রাজা আম। কিন্তু আমের রাণী কে? হিমসাগর, ল্যাংড়া বা গোলাপখাস নয় বরং আমের রাণী হিসেবে মান দেয়া হয় নূরজাহানকে। গত বছর ভারী বর্ষণে এই আমের মুকুলের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হলেও এই বছরের আবহাওয়া এখনও এই আমের জন্য অনুকূল। কিন্তু কেন আমের রাণী বলা হয় এই নূরজাহানকে?

আফগানিস্তানের এই আম গাছের প্রজাতি ভারতের কেবল একটি স্থানেই পাওয়া যায়। তাও খুবই সামান্য পরিমাণে। মধ্যপ্রদেশের আলিরাজপুর জেলার কাত্থিওয়াড়া অঞ্চলেই একমাত্র দেখা মেলে নূরজাহানের। নূরজাহান আমের একটার দৈর্ঘ্য এক ফুট পর্যন্ত হতে পারে। এর আঁটির ওজনই ১৫০ থেকে ২০০ গ্রাম। নূরজাহান আমের সংখ্যা এতোটাই সীমিত যে, গাছে থাকা অবস্থাতেই মানুষ এই আমের অগ্রিম বুকিং দেন। চাহিদা বাড়লে এক একটা আমের দাম ৫০০ রুপি পর্যন্ত পৌঁছে যায়। ইন্দোর থেকে প্রায় ২৫০ কিলোমিটার দূরে কাত্থিওয়াড়াতে এই প্রজাতির আম চাষের বিশেষজ্ঞ ইশাক মশুরী বলেন, এবার আবহাওয়া অনুকূলে বলে নূরজাহানের বেশি ফলন আশা করা হচ্ছে। নূরজাহান গাছগুলোতে জানুয়ারি মাস থেকেই মুকুল ধরতে শুরু করে এবং ফল জুনের শেষদিকে সম্পূর্ণ পেকে যায়। ইশাক মশুরী জানান, এবার এক একটা ফল গড়ে আড়াই কিলোগ্রামের কাছাকাছি ওজনের হতে পারে। আগে নূরজাহান আমের গড় ওজন হত সাড়ে তিন কেজি থেকে পৌনে চার কেজি হতো। বিশেষজ্ঞদের মতে, গত এক দশকে মৌসুমি বৃষ্টিপাতে দেরি, অল্প বৃষ্টি, অতি বৃষ্টি ও আবহাওয়ার অন্যান্য কারণে নূরজাহানের ওজন ক্রমাগত হ্রাস পেয়েছে। ইশাক মশুরী বলেন, এর আগে অনেকবারই কাত্থিওয়াড়ার বাইরে অনেক লোক নূরজাহানের কলম রোপণ করার চেষ্টা করেছে। কিন্তু গাছ হয়নি। আমের এই বিশেষ প্রজাতি ঋতুর পরিবর্তনে অত্যধিক সংবেদনশীল। এর প্রচুর যত্ন প্রয়োজন। তিনি জানান যে, গত বছর শিলাবৃষ্টিতে নূরজাহানের মুকুল ঝরে যায়। এবার নূরজাহানের ভালো ফলন নিয়ে তারা আশাবাদী।

Read 147 times Last modified on Tuesday, 17 December 2019 08:53

Leave a comment

Make sure you enter the (*) required information where indicated. HTML code is not allowed.